• শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৬:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
লিচু’র টক মিষ্টি/ চাষিদের স্বপ্ন দুঃস্বপ্ন উৎপাদন বৃদ্ধিতে কৃষি আবহাওয়া প্রকল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে পিকেএসএফ’র সহযোগী সংস্থার সাথে ট্রেড গ্লোবাল লিমিটেড’র সমঝোতা চুক্তি সম্পন্ন কাঁচা কাঁঠালের বাণিজ্যিক সম্ভাবনার হাতছানি বগুড়ায় গাক আয়োজিত লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং কর্মীদের দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ শুরু “নারী উন্নয়নের আলোকবর্তিকা” আক্কেলপুরের বহ্নিশিখা লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং কর্মীদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন কৃষকের দুয়ারে আদনান বাবুর প্ল্যান্টডক্টর মোবাইল টিম করতোয়া নদী বাঁচাতে ১১ পয়েন্ট মানববন্ধন বৃষ্টি চলাকালীন এবং বৃষ্টি পরবর্তী বীজতলায় ধানের চারার যত্ন কৌশল

বৃষ্টি চলাকালীন এবং বৃষ্টি পরবর্তী বীজতলায় ধানের চারার যত্ন কৌশল

Reporter Name / ৩৬১ Time View
Update : মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১

প্রতীক ওমর
সমুদ্রে ঘূর্ণিঝরের সৃষ্টির প্রভাবে সারাদেশেই গত তিনদিন থেকে বৃষ্টিপাত হয়েছে। কোথাও ভারি বৃষ্টি আবার কোথাও গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলেছে আগামী ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। চলমান এই বৃষ্টিকালীন কৃষকদের ধানবীজতলার প্রতি বিশেষ যত্নবান হতে হবে। এসময় বীজ তলা থ্রিপস রোগে আক্রমণ হতে পারে। এছাড়াও আরো বেশ কিছু সমস্যা তৈরি হতে পারে বীজতলায়। এজন্য কৃষকদের শতর্ক দৃষ্টি রাখতে এবং বীজতলার যত্ন নিতে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের এগ্রোমেট গ্রুপ বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছে। এসব নির্দেশনা অনুযায়ী বাংলাদেশের কৃষক সমাজ কাজ করলে বীজতলায় উদ্ভুত পরিস্থিতি সহজে মোকাবিলা করা যাবে।

চারা অবস্থা কৃষিতাত্ত্বিক ব্যবস্থাপনা:
আবহাওয়া অধিদপ্তর বলেছে ৫-৮ ডিসেম্বর বাংলাদেশের বেশ কিছু জেলায় বৃষ্টি হতে পারে। এই সময় ধানের বীজতলার সেচ নালা পরিষ্কার রাখতে হবে। যাতে বীজতলায় অতিরিক্ত পানি জমে না থাকতে পারে। নালা পরিস্কার থাকলে প্রয়োজনের অতিরিক্ত পানি সহজে বের হয়ে যেতে পারবে। এই সময় বীজতলায় বীজ বপন থেকে বিরত থাকতে হবে। বীজতলায় সার বা কীটনাশক প্রয়োগ করা যাবে না।

সেচ ব্যবস্থাপনা:
বীজ বপনের ১৮ থেকে ২৪ ঘণ্টা পরে পানি নিষ্কাশন করতে হবে। এটি খুবই জরুরি। মাটিতে ছিপছিপে পানি ধরে রাখার জন্য বীজ বপনের ৩ রা থেকে ৫ম দিন পর্যন্ত প্রয়োজনীয় পানি প্রয়োগ করতে হবে। ৫ম দিন থেকে চারার উচ্চতার উপর নির্ভর করে পানির গভীরতা পর্যায়ক্রমে ১.৫ সেমি পর্যন্ত বাড়াতে হবে। এরপর থেকে পানির গভীরতা ২.৫ সে.মি. পর্যন্ত বজায় রাখতে হবে।

কীটপতঙ্গ ব্যবস্থাপনা:
বৃষ্টি চলাকালী বা বৃষ্টি পতবর্তী সময়ে বীজ তলা থ্রিপস রোগের আক্রমণ হতে পারে। থ্রিপস রোগে আক্রান্ত চারার পাতা একপাশ থেকে মুড়িয়ে শুই এর মত সোজা হয়ে যায় এবং পরে শুকিয়ে যায়। এই রোগের আক্রমণ হলে চারা নষ্ট হয়ে যায়। তড়িত ব্যবস্থা না নিলে পুরো বীজতলা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে শতকরা ২৫ ভাগ পাতা ক্ষতিগ্রস্থ হলে ম্যালাথিয়ন ৫৭ ইসি প্রতি লিটার পানিতে ২ মি.লি মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ দেখা দিলেই স্প্রে করতে হবে। এ ক্ষেত্রে বেশি সমস্যা হলে স্থানীয় কৃষিবিদদের পরামর্শ নিতে হবে। প্রয়োজনে স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তাদের অবহিত করে মাঠে সরজমিন দেখে কার্যকরি পদক্ষেপ নেয়ার পরামর্শ নিতে হবে।

রোগবালাই ব্যবস্থাপনা:
বৃষ্টির আগে দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে, এটি পাতা ব্লাস্ট সংক্রমণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। বৃষ্টির পর তাপমাত্রা কমতে পারে সেজন্য পাতা ব্লাস্টের উপদ্রব শুরু হবে কিন্তু মহামারী আকার ধারন করবে না। এই অবস্থায় ৫ শতাংশ জমির জন্য নোটিভো ৬ গ্রাম ১০ লিটার পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করা ভাল। এটি চারা ধসা রোগের সম্ভাবনাও কমিয়ে দেবে। আবার যদি বীজতলা পানিতে ডুবে যায় তখন বীজতলায় ব্যাকটেরিয়াজনিত পাতা পোড়া রোগ দেখা দিতে পারে। সে ক্ষেত্রে চারা একটু সোজা হয়ে উঠলে ৬০ গ্রাম থিওভিট ৬০ গ্রাম পটাশ সার ২০ গ্রাম জিংক সার ১০ লিটার পানিতে মিশিয়ে প্রতি ৫ শতাংশ জমিতে স্প্রে করতে হবে এবং বীজতলা দ্রুত শুকিয়ে দিতে হবে।

বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের এসব পরমর্শ অনুযায়ী কৃষকরা তাদের ধান বীজতলার পরিচর্যা করলে আশাকরা যায় যে কোন ক্ষতির হাত থেকে ক্ষেতকে রক্ষা করা যাবে।

লাঙ্গল পরিচিতি:
লাঙ্গল একটি কৃষি ভিত্তিক ভাচ্যুয়াল সংগঠন। এর ওয়েব পোর্টাল: যঃঃঢ়://ষধহমমড়ষ.পড়স/
ফেসবুক পেজ: যঃঃঢ়ং://িি.িভধপবনড়ড়শ.পড়স/খধহমমড়ষ-ইউ-১০৩৮১৯৫০৫৪৮৪৩৭৭/?ৎবভ=ঢ়ধমবংথুড়ঁথসধহধমব, এবং ইউটিউব চ্যানেল: যঃঃঢ়ং://িি.িুড়ঁঃঁনব.পড়স/পযধহহবষ/টঈ-ঐৎচ৬চযং১শীঐফষঅইখীঠইউি

এসব ভাচ্যুয়াল মাধ্যমে বাংলাদেশের কৃষি এবং কৃষিজাত পন্যের নানা দিক তুলে ধরা হয়। কৃষিতে নতুন আবিস্কার, সফল কৃষকের গল্প, চাষাবাদে সমস্য এবং প্রতিকার এসব বিষয় প্রতিনিয়তই তুলে ধরা হয়। প্রান্তিক কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে তাদের পাশে সব সময় থাকবে ‘লাঙ্গল’। সুতরাং লাইক, পরামর্শ দিয়ে সাথে যুক্ত থাকুন।
এছাড়াও বিশ্বের নানা কৃষি প্রযুক্তি বাংলাদেশের কৃষকদের কাছে সহজ ভাবে উপস্থানের জন্য ‘লাঙ্গল’ গবেষণা চালাচ্ছে। পর্যায়ক্রমে কৃষক এবং খামারিদের জন্য নতুন নতুন উদ্ভাবন নিয়ে হাজির হবে লাঙ্গল। কৃষ্টি প্লাটফর্মে আমাদের এই যাত্র সবেমাত্র শুরু। আপনারদের পরামর্শ, অনুপ্রেরণা নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাবে লাঙ্গল।
পরীক্ষামূলক কার্যক্রেমেই ইতোমধ্যে আমাদের ভাচ্যুয়াল এই জগৎ কৃষক এবং খামারিদের মধ্যে সারা ফেলতে পেরেছে। আমরা বিশ^াস করি খুব দ্রত সময়ের মধ্যে আমাদের সাইডগুলো গুছিয়ে পূর্ণাঙ্গভাবে আপনাদের সামনে হাজির হতে পারবো। আপনাদের আশেপাশের কৃষকদের সমস্যা এবং সম্ভাবনার কথা দ্বিধাহীনভাবে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা আপনার কথাগুলো অন্যদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে চাই। সফল কৃষক, খামারি এবং কৃষি উদ্যোক্তাদের দেশ তথা দেশের বাইরের জগতের সাথেও পরিচিত করে দিতে চাই। আমাদের মেইল এবং সোস্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আপনারা যেকোন তথ্য, তত্ত্ব জানিয়ে সাথে থাকবেন। -প্রতীক ওমর, সম্পাদক ‘লাঙ্গল’।
ই-মেইল: langgol.bangladesh@gmail.com , মোবাইল: ০১৭১৭৮৫২৬৮২


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category